spot_img
Homeচট্টগ্রাম মহানগরচট্টগ্রামে পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে ৬ ম্যাজিস্ট্রেটের অভিযান, অর্থদণ্ড ৬৪ হাজার

চট্টগ্রামে পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে ৬ ম্যাজিস্ট্রেটের অভিযান, অর্থদণ্ড ৬৪ হাজার

চট্টগ্রামের ভোগ্যপণ্যের বাজারে পেঁয়াজ নিয়ে অস্থিরতা কাটছেই না। খুচরা পর্যায়ে পেঁয়াজ বিক্রির মূল্য ১২০ টাকা নির্ধারণ করা হলেও মানছে অনেক ব্যবসায়ী। খুচরা বাজার নিয়ন্ত্রণে চট্টগ্রাম নগরের অভিযান চালিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের ছয় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চট্টগ্রাম নগরীর চাক্তাই, রিয়াজউদ্দিন বাজার, ২ নম্বর গেটের কর্ণফুলী মার্কেট, পাহাড়তলী বাজার ও আগ্রাবাদের চৌমুহনীর কর্ণফুলী মার্কেটে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানে ১৮ ব্যবসায়ীকে ৬৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া আরও ৫০ দোকানিকে সতর্ক করা হয়।

জানা গেছে, নগরীর ২ নম্বর গেটের কর্ণফুলী বাজারে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক। বাজারে ক্রয়-বিক্রয় রসিদ অসংরক্ষণ না করা ও উচ্চমূল্যে পেঁয়াজ বিক্রির দায়ে মার্কেটের সাকিব স্টোরকে ৫ হাজার, ফিরোজ স্টোরকে ৫ হাজার, আবদুল হাকিম স্টোরকে ১০ হাজার, খাজা স্টোরকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

কোতোয়ালী থানার চাক্তাইয়ে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাকিবুল ইসলাম। তিনি একটি মামলায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

এছাড়া পাহাড়তলী বাজারে অভিযান চালান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিমাদ্রি খ্রীসা। অভিযানে আট দোকানির কাছ থেকে জরিমানা আদায় করা হয় ১০ হাজার টাকা।

নগরীর কাজীর দেউড়ি বাজারে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফেরদৌস আরা। তিন মামলায় তিনি আদায় করেন ৬ হাজার টাকা জরিমানা।

রিয়াজউদ্দিন বাজারে অভিযান চালিয়ে দুই ব্যবসায়ীকে ৮ হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ খায়রুল ইসলাম চৌধুরী।

এদিকে নগরীর আগ্রাবাদের চৌমুহনী এলাকার কর্ণফুলী মার্কেটে ৫০ দোকানিকে সতর্ক করেন সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম। একইসঙ্গে একজন ক্রেতার কাছে ২ কেজির বেশি পেঁয়াজ বিক্রি না করতে বলেন এবং বর্তমান মূল্য অনুযায়ী ১২০ টাকার বেশিও পেঁয়াজ বিক্রি না করতে সতর্ক করেন।

জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান জানান, পাইকারি বাজারের পাশাপাশি খুচরা বাজারেও মনিটরিং করা হচ্ছে। ১৫ উপজেলা ও নগরে ২১ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাজার মনিটরিংসহ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছেন। দাম নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত অভিযান অব্যাহত থাকবে।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments